বাংলাদেশের সর্বনিম্ন মজুরী - প্রায় জিজ্ঞাসাকৃত প্রশ্নাবলী

বাংলাদেশে ন্যূনতম মজুরীসংক্রান্ত কোন পৃথক আইন আছে কি?

বাংলাদেশ শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনে, ন্যূনতম মজুরী বোর্ড অনুসারে, বাংলাদেশে কোন ন্যূনতম মজুরী আইন নেই, তবে শ্রম আইন বিষয়ক একটি নির্দিষ্ট আইন আছে যা বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০১৩ (সংশোধিত) নামে পরিচিত। ন্যূনতম মজুরী নির্ধারণ এবং নিয়ন্ত্রনের উদ্দেশ্যে ন্যূনতম মজুরী বোর্ড ১৯৫৯ সালে বাংলাদেশ শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনে স্থাপিত হয় ।

আইনের দ্বারা নির্ধারিত এক বা একাধিক ন্যূনতম মজুরী কি বিদ্যমান আছে ?

বাংলাদেশে একের অধিক ন্যূনতম মজুরি বিদ্যমান রয়েছে।

এই ন্যূনতম মজুরী কোন পর্যায়ে নির্ধারণ করা হয়ে থাকে?

বাংলাদেশে একটি জাতীয় ন্যূনতম মজুরি এবং শিল্প ভিত্তিক ন্যূনতম মজুরি রয়েছে। ন্যূনতম মজুরি বোর্ডের সুপারিশের ভিত্তিতে সরকার দ্বারা ন্যূনতম মজুরি ঘোষণা দেওয়া হয়ে থাকে, ন্যূনতম মজুরি বোর্ড শ্রম আইন ২০০৬ এর ধারা ১৩৮ এর অধীনে স্থাপিত একটি বিশেষ ত্রিপক্ষিয় বোর্ড।

কিসের ভিত্তিতে ন্যূনতম মজুরী হিসাব করা হয়ে থাকে?

শ্রম আইন ২০০৬ এর ধারা ১২২ অনুসারে, ন্যূনতম মজুরি মাসিক ভিত্তিতে নির্ধারণ করা হয়।

সাপ্তাহিক এবং মাসিক ক্ষেত্রে, ন্যূনতম মজুরী কি কাজের ঘণ্টার উপর ভিত্তি করে নির্ধারণ করা হয়ে থাকে?

ন্যূনতম মাসিক মজুরি দৈনিক এবং সাপ্তহিক কাজের ঘণ্টার উপর ভিত্তি করে নির্ধারণ করা হয়ে থাকে যা হল ৮ ঘণ্টা দৈনিক এবং ৪০ ঘণ্টা প্রতি সপ্তাহ। শ্রম আইন ২০০৬ অনুসারে, মাসিক ন্যুনতম মজুরি প্রতি সপ্তাহে কাজের ঘণ্টার উপর ভিত্তি করে নির্ধারণ করা হয়।

ন্যূনতম মজুরী নির্ধারণে সরকারি প্রতিষ্ঠান, কর্মকর্তা এবং/ অথবা শ্রমিক সমিতির প্রতিনিধিদের কোন সম্পৃক্ততা আছে কি?

ন্যূনতম মজুরি বোর্ডের, শ্রম আইন ২০০৬ এর দশম অধ্যায়ের অধীনে স্থাপিত একটি বিশেষ ত্রিপক্ষিয় বোর্ড, সুপারিশে ন্যূনতম মজুরি সরকার দ্বারা ঘোষণা করা হয়। এই বোর্ডের সদস্যগণকে অবশ্যই সরকার দ্বারা নিযুক্ত হতে হবে এবং একজন চেয়ারম্যান, একজন স্বতন্ত্র সদস্যসহ প্রত্যেক নিয়োগকর্তা এবং শ্রমিকের অধীনে একজন প্রতিনিধি এবং প্রতিটি সম্পৃক্ত শিল্পের অধীনে নিয়োগকর্তা এবং শ্রমিকের একজন যথাযথ প্রতিনিধি থাকতে হবে।

ন্যূনতম মজুরির সুবিধা সমন্বয়ের ব্যাপারে কিভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়?

ন্যূনতম মজুরি বৃদ্ধি / পরিবর্তনের হার যৌথ ভাবে সরকার, নিয়োগকর্তা এবং ট্রেড ইউনিয়ন প্রতিনিধিদের দ্বারা নির্ধারণ করা হয়ে থাকে।

বাংলাদেশে ন্যূনতম মজুরি উপাদান গুলো কি?

বাংলাদেশে ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণে অপরিবর্তনীয় এবং পরিবর্তনশীল উপাদান রয়েছে।

ন্যূনতম মজুরীর ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট উপাদানগুলো কত নিয়মিতভাবে হালনাগাদ করা হয়?

ন্যূনতম মজুরীর ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট / অপরিবর্তনীয় উপাদানগুলো প্রতি ২ বছর অন্তর হালনাগাদ করা হয়ে থাকে।

ন্যূনতম মজুরীর পরিবর্তনশীল উপাদানগুলোকে কত নিয়মিতভাবে হালনাগাদ করা হয়ে থাকে?

ন্যূনতম মজুরীর পরিবর্তনশীল উপাদানগুলোকে নিয়মিতভাবে এক বছরের মধ্যে হালনাগাদ করা হয়ে থাকে।

ন্যূনতম মজুরীর বৃদ্ধির পিছনে কোন মাপকাঠি/ মাপকাঠি সমূহ কাজ করে থাকে?

ন্যূনতম মজুরী বৃদ্ধি করার পেছনে জীবনযাত্রার খরচ, শ্রমিকের এবং তার পরিবারের চাহিদা, উৎপাদনের খরচ, উৎপাদনশীলতা, পণ্যের দাম, ভোক্তা মূল্য দিতে নিয়োগকারীদের ক্ষমতা, দেশের অর্থনৈতিক এবং সামাজিক অবস্থা, মুদ্রাস্ফীতির হার ইত্যাদি বিষয় বিবেচনা করে থাকে। (মজুরী সূচক, ভোক্তার মূল্য সূচক এবং উপযুক্ত জীবনযাত্রার মান।)

বাংলাদেশের জাতীয় দারিদ্রসীমা রেখা কত?(জাতীয় মুদ্রায়)

বাংলাদেশের জাতীয় দারিদ্র্য রেখার মান হল দিন প্রতি ১৫৫.২১ টাকা।

দারিদ্র সীমারেখা কত নিয়ত হালনাগাদ করা হয়ে থাকে?

বাংলাদেশের জাতীয় দারিদ্র্য রেখা প্রতি ৫ বছর অন্তর হালনাগাদ করা হয়ে থাকে।

দারিদ্র সীমারেখা সর্বশেষ কখন হালনাগাদ করা হয়েছে?

জাতীয় দারিদ্র্য রেখা সর্বশেষ ২০১০সালে হালনাগাদ করা হয়েছে।

বর্তমান দারিদ্র্য রেখার তুলনায় / আপেক্ষিক ভাবে ন্যূনতম মজুরির শতকরা হার কি ?

বর্তমান দারিদ্র্য রেখার তুলনায় / আপেক্ষিক ভাবে ন্যূনতম মজুরির শতকরা হার ৩০% । যেহেতু সকল অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ন্যূনতম মজুরী ১৫০০টাকা এবং জাতীয় দারিদ্র্য রেখা দিন প্রতি ১৫৫ টাকা।

জাতীয় শ্রম শক্তিতে ন্যূনতম মজুরির সংঘটন কি ? (শুধুমাত্র উপার্জনকারীদের জন্য প্রযোজ্য)

ন্যূনতম মজুরী বোর্ড দ্বারা নির্ধারিত মজুরী ছক একজন শ্রমিকের দৈনন্দিন জীবনের চাহিদার উপর ভিত্তি করা হয় না। যার কারণে একজন কর্মীর আয় ও ব্যয়ের স্তরের মধ্যে বিশাল ব্যবধান রয়েছে এবং এইজন্য শ্রমিক গোষ্ঠী দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করতে বাধ্য থাকে।

ন্যূনতম মজুরি সংগঠন কিভাবে নিয়ন্ত্রিত হয়?

শ্রম আইন ২০০৬ এর ধারা ৩১৭ এবং ৩১৮ এর অধীনে, বাংলাদেশ সরকার সরকারী গেজেটে প্রজ্ঞাপন দ্বারা, সংগঠন প্রক্রিয়ায় উপযুক্ত ব্যক্তি নিয়োগ করে থাকে এবং তাদের কাজের নির্দিষ্ট স্থানীয় সীমা নির্ধারণ করে থাকে। এছাড়াও ট্রেড ইউনিয়ন / নিয়োগকর্তা / বিশেষ কোন সংস্থাও এই আইন সংগঠন প্রক্রিয়াতে যুক্ত থাকতে পারে।

মজুরী সংগঠনের ক্ষেত্রে কোন ধরণের আইনি ব্যবস্থা প্রয়োগ করা যেতে পারে যা বর্তমানে অনুপস্থিত আছে?

আইনি সংগঠনের অবর্তমানে, নিয়োগকর্তাকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা অথবা ১ বছরের কারাদণ্ড অথবা উভয়েই করা যেতে পারে। কোন ক্ষেত্রে নিয়োগকর্তাকে ক্ষতিগ্রস্থ শ্রমিককে পাওনা পারিশ্রমিক এবং প্রদানকৃত পরিমাণের মধ্যকার একটি পরিমান পরিশোধ করার আদেশও দেওয়া যেতে পারে।

আইনি নিষেধাজ্ঞা কি সবসময় প্রয়োগ করা হয়ে থাকে?

আইনি নিষেধাজ্ঞা মাঝেমাঝে প্রয়োগ করা হয়ে থাকে।

আইনি সংগঠন প্রক্রিয়াতে কি নিয়োগকর্তা এবং/বা ট্রেড ইউনিয়ন প্রতিনিধিদের সম্পৃক্ততা আছে?

আইনি সংগঠনের ক্ষেত্রে, নির্দিষ্ট শিল্পের অধীনে বিশেষ ট্রেড ইউনিয়ন অথবা শ্রম প্রতিনিধিদের সম্পৃক্ততা বিদ্যমান রয়েছে।

যদি কোন ব্যক্তি মনে করে যে সে ন্যূনতম মজুরী থেকেও কম মজুরী পাচ্ছে তাহলে কোথায় / কাদের কাছে অভিযোগ করতে পারবে?

কোন একজন ব্যক্তির ক্ষেত্রে যদি মনে হয় যে তারা সর্বনিম্ন মজুরি থেকেও কম মূল্য পাচ্ছে তাহলে, তারা শ্রম পরিদর্শকের প্রতিনিধি / ট্রেড ইউনিয়ন স্থানাঙ্ক প্রতিনিধির কাছে নালিশ করতে পারেন।

বাংলাদেশে বছরের কোন মাসে ন্যূনতম মজুরী হার সংশোধিত করা হয়ে থাকে?

যেকোন শিল্পের জন্য ন্যূনতম মজুরি হার সরকার কর্তৃক প্রতি পাঁচ বছর পর বছরের যেকোনো সময় পুনরায় সংশোধন করা যেতে পারে.

loading...