অসুস্থতারজন্যছুটি

বেতন

সংবাদপত্রের কর্মীদের ছাড়া, বাকি সব কর্মীদের একটি পঞ্জিকা বছরের মধ্যে ১৪ দিন পর্যন্ত পূর্ণ মজুরিসহ অসুস্থতার জন্য ছুটি পাওয়ার অধিকার রাখে। সংবাদপত্রের শ্রমিক তার চাকরি মেয়াদের ১/১৮ অনূর্ধ্ব সময়ের অর্ধেক মজুরিসহ অসুস্থতার জন্য ছুটি পাওয়ার অধিকার রাখে। এই ধরনের কোন ছুটি মঞ্জুর করা হবে না যদি না তা নিয়োগকর্তা কর্তৃক নিজুক্ত রেজিস্টার্ড চিকিৎসক দ্বারা প্রত্যয়িত হয় যে সংশ্লিষ্ট শ্রমিক অসুস্থ এবং তার চিকিৎসার জন্য ছুটির প্রয়োজন। এই ধরনের ছুটি জমা করা যায় না এবং পরবর্তী বছরের জন্য এগিয়ে নেওয়া যাবে না।

এই বিধান থেকে বলা যায় যে অসুস্থতার জন্য ছুটি পারিশ্রমিকসহ (১৪ দিন পর্যন্ত) এবং পারিশ্রমিক ছারা(১৪ দিনের অধিক) উভয়ই হতে পারে।

অসুস্থতা ছুটির জন্য, একজন শ্রমিককে তার নিয়োগকর্তা পূর্ণ মজুরির দৈনিক গড় হারে মজুরি সহ মহার্ঘ ভাতা, এড হক ভাতা বা অন্তর্বর্তীকালীন মজুরি (যদি থেকে থাকে) দিয়ে থাকবে, তবে এর থেকে ওভারটাইম এবং বোনাস বাদ যাবে। ৩০০ জন শ্রমিকসহ প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে শ্রমিকদের কে কর্মক্ষেত্রেই চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে হবে। যেই প্রতিষ্ঠানে নিয়োগকর্তা চিকিৎসা সেবা দেয় না সেইখানে প্রতিমাসে ১০০ টাকা করে মাসিক চিকিৎসা ভাতা প্রদান করতে হবে।

পাবলিক সেক্টরের ক্ষেত্রে, ১৯৫৯ সনের নির্ধারিত ছুটি বিধি অনুযায়ী, শ্রমিকরা সর্বচ্চ ৪মাসের মজুরি সহ অসুস্থতা ছুটি নিতে পারবে যা মেডিকেল সার্টিফিকেট এর মাধ্যমে ৬ মাস এবং জমাকৃত ছুটি এক করে ১ বছর পর্যন্ত বৃদ্ধি করা যাবে (বার্ষিক ছুটির মত)। পাবলিক সেক্টরের শ্রমিকদের জন্য মাসিক ৭০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা প্রদানের নিয়ম আছে।

(শ্রম আইন ২০০৬ এর ধারা ১১৬ এবং ১১৯, সংশোধিত ২০১৩, ১৯৫৯ এর নির্ধারিত ছুটির বিধান)                                                                                                                    

চিকিৎসাসেবা

সর্বনিম্ন ২০০ শ্রমিক নিযুক্ত আছে এমন প্রতিষ্ঠানে সরকারি আইন অনুযায়ী সম্মিলিত বীমা নিয়ম থাকা বাধ্যতামূলক। প্রত্যেক সংবাদপত্র শ্রমিক  এবং তার উপর নির্ভরশীল ব্যক্তিগন সংবাদপত্র প্রতিষ্ঠানের ব্যয় বিধি দ্বারা নির্ধারিত ব্যবস্থায় এবং সেই পরিমানে চিকিৎসা পরিচর্যা পাবার অধিকার রাখে।অনেক প্রতিষ্ঠানের নিয়োগকর্তাগণ তাদের শ্রমিকদেরকে কাজের জায়গাতেই চিকিৎসা সেবা দিয়ে থাকে এবং শ্রমিকরা কিছু ক্ষেত্রে নির্ধারিত সরকারি হাসপাতাল থেকেও চিকিৎসা নিতে পারে। যেখানে এইধরনের চিকিৎসা সেবা দেয়া হয় না সেইখানে নিয়োগকর্তা শ্রমিকদেরকে মাসিক  ১০০টাকা করে চিকিৎসা ভাতা দিয়ে থাকে। সকল পাবলিক সেক্টরের শ্রমিকদেরকে ৭০০ টাকা মাসিক চিকিৎসা ভাতা দেওয়া হয়ে থাকে।

(শ্রম আইন ২০০৬এর ধারা ৯৮-৯৯, সংশোধিত ২০১৩)  

অসুস্থতারসময়চাকরিরনিরাপত্তা

প্রথম ১৪ দিনের অসুস্থতার ক্ষেত্রে শ্রমিকের চাকরি সুরক্ষিত থাকে। এর পরবর্তী সময়ে শ্রমিককে একটি পারিশ্রমিক ছাড়া ছুটি মঞ্জুর করা যেতে পারে তবে এই মর্মে সময় বিষয়ক কোন সঠিক আইন নেই।কোন শ্রমিক যদি চিকিৎসকের সার্টিফিকেট দ্বারা প্রমান করে যে সে অসুস্থতার জন্য কাজ করতে অক্ষম তবে  নিয়োগকর্তা তাকে ডিসচার্জ দিতে বাধ্য থাকবে।

(শ্রম আইন ২০০৬ এর ধারা ২২, সংশোধিত ২০১৩)

কর্মএবংঅসুস্থতারবিধানসমূহঃ

  • বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬, সংশোধিত ২০১৩ / Bangladesh Labour Act 2006, amended in 2013
© WageIndicator 2017 - Cite this page: Mywage.org.bd - কর্ম এবং অসুস্থতা